দ্বিতীয় ইনিংস নিয়ে টাইগারদের আশরাফুলের প্রেসক্রিপশন

আচ্ছা! হ্যাগলি ওভালে টাইগারদের অ্যাপ্রোচ ও অ্যাপ্লিকেশন কী ঠিক ছিল? ভক্ত ও সমর্থকরা সে প্রশ্নের উত্তর খুঁজছেন। জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল জাগো নিউজের সঙ্গে আলাপে সে প্রশ্নের মুখোমুখি হয়ে সোজা সাপটা কোন কথা বলেননি।

তবে বুঝিয়ে দিয়েছেন, আসল পার্থক্যটা হলো কন্ডিশন। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা মাউন্ট মঙ্গানুইয়ের কন্ডিশনের সঙ্গে নিজেদের খুব ভালভাবে মানিয়ে নিতে পারলেও ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে এসে পারেনি। খাবি খাচ্ছে। কারণ এই কন্ডিশনের সাথে অ্যাডজাস্টমেন্টটা ভাল হয়নি।

আশরাফুলে ব্যাখ্যা, ‘মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে ডাবল বাউন্স ছিল। ওই ধরনের উইকেটে বল লাফিয়েও উঠবে। আবার নামবেও; কিন্তু এখানে শুধু উঠবে। নামবে না। আন ইভেন বাউন্সের পিচে আপনি বাজে বল করে আলগা ডেলিভারি দিয়েও বেঁচে যাবেন। তবে ইভেন উইকেটে আলগা বল করলে আর রক্ষা নেই। এখানে তাই হয়েছে। আমরা ভাল বোলিংও করিনি। বেশ আলগা বল ছুঁড়েছি। কিউরা ওভারপিছু প্রায় ৪ করে রান করেছে।

ওপেনার সাদমানের আউট হওয়ার উপমা টেনে আশরাফুল বলেন, ‘এ উইকেটে কখনো লেন্থ আবার কোন সময় লাইনটা বড় ফ্যাক্টর। দেখে সাদমান আজ লেগ মিডলে থাকা বলকে কী সুন্দরভাবে ডিফেন্স করেছে। কিন্তু যখনই বল লেগ মিডলে না পড়ে অফস্ট্যাম্প ও তার আশপাশে পড়েছে, তখন ওই লেন্থের ডেলিভারিতেই সে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে আউট হয়েছে। লেন্থ এক ছিল। শুধু লাইনটাই ছিল ভিন্ন। ফোর্থ স্ট্যাম্পে খেলতে গিয়ে আউট হয়েছে সাদমান। ছেড়ে দিলেই বেঁচে যেত; কিন্তু অফস্ট্যাম্প ও তার আশপাশের বলে ওই অ্যাডজাস্টমেন্টটাই আসল। সেটা সহজ কাজ নয়।’

দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ কী করতে পারে? আবারও কী এমন পরিণতিই ঘটবে? নাকি প্রথম ইনিংসের চেয়ে ভাল ব্যাটিংয়ের সম্ভাবনা আছে?

আশরাফুল নৈরাশ্যবাদী নন। তার কথা, ‘অফস্ট্যাম্পের আশপাশে দেখে ও ছেড়ে খেলতে পারলে এবং মঙ্গলবার সকালের সেশনটা দেখে কাটিয়ে দিতে পারলে প্রথম ইনিংসের মত এত খারাপ অবস্থা হবে না।’

আশরাফুলের প্রেসক্রিপশন, প্রথমতঃ বল ছেড়ে খেলতে হবে। ফোর্থ ও ফিফথ উইকেটের বলগুলোকে সর্বোচ্চ সতর্ক হয়ে খেলতে হবে।

তিনি বলেন, ‘আমরা যদি ছেড়ে খেলতে পারি, ফোর্থ-ফিফথ উইকেটের বলকে উইকেট কভার করে ব্যাট পেতে না দিয়ে পিছনে যেতে দিতে পারি, তাহলে এতটা খারাপ অবস্থায় পড়তে হবে না। আর সবচেয়ে বড় কথা, কাল মঙ্গলবার সকালের সেশনটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। সকালে যদি উইকেট আঁকড়ে থাকা যায়, তাহলে নতুন বল যদি সারভাইভ করতে পারি, তাহলে লম্বা সময় উইকেটে থাকা সম্ভব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *